বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ
#রেমাল রেখে গেছে শুধুই ক্ষত#কেন্দুয়ায় ফুটবল খেলা নিয়ে সংঘর্ষে একজন নিহত #নেত্রকোনা জেলা সাবরেজিস্ট্রার অফিসে নেই কোনো কার্যক্রম, জনগনের ভোগান্তি চরমে #আজ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী#পূর্বধলায় চিরকুট লেখে ট্রেনের নীচে ঝাঁপ দিয়ে নারীর আত্মহত্যা#সিলেটের কৈলাশটিলা ৮ নম্বর কূপে গ্যাসের সন্ধান#বেনজীরের সম্পদ জব্দের নির্দেশ#এমপি হত্যার অন্যতম সন্দেহভাজন সিয়াম কলকাতায় গ্রেফতার#গৌরীপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যাঁরা #নিখোঁজ ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপির মরদেহ কলকাতা থেকে উদ্ধার#নেত্রকোনার উপজেলা নির্বাচনের ফলাফল#নারান্দিয়া ইউনিয়নে পরিবার পরিকল্পনার পদ্ধতি বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত#শ্যামগঞ্জে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড!#ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’#একজন পরিমার্জিত কনটেন্ট ক্রিয়েটর পপি#নেত্রকোণায় নো হেলমেট, নো ফুয়েল কার্যক্রম শুরু#পঞ্চম বাংলাদেশির এভারেস্ট জয়#পূর্বধলায় নির্বাচনী অফিস ভাংচুর, ককটেল বিস্ফোরণ, আহত-২, গাড়িসহ বিপুল পরিমান অস্ত্র উদ্ধার, আটক-৩#কারওয়ান বাজারের কাঁচা বাজারে আগুন#ব্যাংকের শাখায় শাখায় ঘুরেও মিলছেনা টাকা

‘আমি কি এখানে থেকে মরবো ? না চলে আসবো? মায়ের সাথে এটাই ছিল ইতি’র শেষ কথা

সুপক রঞ্জন উকিল / ১৫৭ বার পড়া হয়েছে
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন

প্রকাশের সময় 12/05/2024

‘আমি কি এখানে থেকে মরবো ? না চলে আসবো? 

মায়ের সাথে এটাই ছিল ইতি’র শেষ কথা

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌর শহরের সতিষা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মো. আব্দুর রশিদের কন্যা ইতি।

বাবার অভিযোগ, মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। শরীরে আঘাতের চিহ্ন, ঘাড়ে ৩টি ইনজেকশনের সুইয়ের দাগ, হাতে ব্লেড দিয়ে কাটা ক্ষত চিহ্ন রয়েছে, বাম হাত ভাঙা, কানের একাংশে কালো দাগ রয়েছে। তাকে নির্মমভাবে আঘাতের পর হয়তো ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করা হয়েছে বা হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলিয়েছে। আমার মেয়ে মরতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, মানুষের সেবা করার ব্রত নিয়ে নার্সিং সেবাকে বেঁছে নিয়েছিল। সকল বাধা অতিক্রমের মন মানসিকতাপূর্ণ ছিল তার। যে কারণে সে কখনো আত্মহত্যা করতে পারে না।

মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন সাভার মডেল থানার ওসি শাহ জামান। তিনি জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। নিহতের স্বামী মো. শাকিরুল হক শুভকে (৩০) আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

শুভর বাবা ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার বালুয়াপাড়ার গোলাম মোহাম্মদ খান পাঠান (ডা. রায়হান) এ সাংবাদিকদের জানান, আমি প্রথম শুনেছি আমার পুত্রবধূ ইতি অসুস্থ। পরে জানলাম সে আত্মহত্যা করেছে। ঘরের দরজা ভেঙে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে। ঘরে ভাত-মাছ-মাংস রান্না করা ছিল কেউ কিছু খায়নি। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সম্ভবত বিরোধ চলছিল।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, ২০২৩ সালের ৮ ডিসেম্বর শুভর সঙ্গে ইতির বিয়ে হয়। ইতি গৌরীপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০১৪ সালে এসএসসি ও ২০১৮ সালে রাজবাড়ি নার্সিং ইনস্টিটিউট থেকে ডিপ্লোমা পাস করেস। বর্তমান সাভারে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সিনিয়র স্টাফ নার্স হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

বিয়ের পর থেকে সাভারের তালতলা বেকারি এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছিলেন। শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে ইতি টানা ৩ দিনের উিউটি শেষ করে বাসায় ফেরেন। সকাল ১০টার দিকে ইতি তার মা পারভীন আক্তারের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় তিনি তার মাকে জানান, আমি কী এখানে থেকে মরব; না চলে আসব? তখন তার মা ইতিকে জানান, তোদের কী হয়েছে? তখন কোনো কিছুই বলে নাই।

এরপর ওর বোনকে ফোন দিয়ে কারণ জানতে চাই, তখনো কিছু বলে নাই। এরপর হঠাৎ আমার মেয়ের চিৎকার শুনতে পাই, এই চিৎকারই, শেষ কথা, মেয়ের কণ্ঠের শেষ চিৎকার। এরপর থেকে মেয়ের ফোন বন্ধ, মেয়ের জামাই শুভর ফোনে একাধিক নাম্বার থেকে একাধিকবার কল দিলেও ফোন রিসিভ করে নাই।

তিনি আরও জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বেয়াই ডা. রায়হান ফোন দিয়ে বলেছেন, মেয়ের কী অবস্থা একটু খোঁজ নেন, তখন আমরা বলেছি, মেয়ের ফোন বন্ধ, জামাইতো কল রিসিভ করে না। এরপর শুভর নাম্বারে কল দিলে কল রিসিভ করেছে, প্রথমে আমরা কেমন আছি এসব জিজ্ঞাস করে। তারপরে বলে ইতি আর নাই! সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পরিকল্পিতভাবে নির্যাতন করে আমার মেয়েকে মেরে ফেলা হয়েছে, আমি আমার মেয়ের হত্যার বিচার চাই।

এদিকে ইতির মৃত্যুতে শোক বইছে এলাকাজুড়ে। ছুটে এসেছে ইতির বান্ধবীরাও। কয়েকদিন আগে বিয়ের মেহেদি রাঙার সেই হাত, বিয়ের শাড়ি আর স্মৃতিময় ঘটনা বলে তারা কান্নায় ভেঙে পড়ছেন।

বান্ধবী তাসফিয়া জাহান উর্মি জানায়, ইতি অত্যন্ত শান্ত স্বভাবের একটা মেয়ে। সে স্কুলজীবনে আমাদেরকে পরামর্শ দিতো। সে মৃত্যুর পথ বেছে নেবে বিশ্বাসযোগ্য নয়। এই তো সেদিন রঙিন শাড়ি আর মেহেদি রাঙা হাতে বিদায় জানিয়ে গেলাম। এটাই যে শেষ বিদায়, তাতো বুঝি নাই।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর