বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ
#রেমাল রেখে গেছে শুধুই ক্ষত#কেন্দুয়ায় ফুটবল খেলা নিয়ে সংঘর্ষে একজন নিহত #নেত্রকোনা জেলা সাবরেজিস্ট্রার অফিসে নেই কোনো কার্যক্রম, জনগনের ভোগান্তি চরমে #আজ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী#পূর্বধলায় চিরকুট লেখে ট্রেনের নীচে ঝাঁপ দিয়ে নারীর আত্মহত্যা#সিলেটের কৈলাশটিলা ৮ নম্বর কূপে গ্যাসের সন্ধান#বেনজীরের সম্পদ জব্দের নির্দেশ#এমপি হত্যার অন্যতম সন্দেহভাজন সিয়াম কলকাতায় গ্রেফতার#গৌরীপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যাঁরা #নিখোঁজ ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপির মরদেহ কলকাতা থেকে উদ্ধার#নেত্রকোনার উপজেলা নির্বাচনের ফলাফল#নারান্দিয়া ইউনিয়নে পরিবার পরিকল্পনার পদ্ধতি বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত#শ্যামগঞ্জে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড!#ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’#একজন পরিমার্জিত কনটেন্ট ক্রিয়েটর পপি#নেত্রকোণায় নো হেলমেট, নো ফুয়েল কার্যক্রম শুরু#পঞ্চম বাংলাদেশির এভারেস্ট জয়#পূর্বধলায় নির্বাচনী অফিস ভাংচুর, ককটেল বিস্ফোরণ, আহত-২, গাড়িসহ বিপুল পরিমান অস্ত্র উদ্ধার, আটক-৩#কারওয়ান বাজারের কাঁচা বাজারে আগুন#ব্যাংকের শাখায় শাখায় ঘুরেও মিলছেনা টাকা

ব্রহ্মপুত্র নদের পাড় এখন ‘গরিবের কক্সবাজার’

প্রতিবেদক এর নাম / ২৯ বার পড়া হয়েছে
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন

প্রকাশের সময় 18/04/2024

নাব্যতা হারানো ব্রহ্মপুত্র নদ এখন কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকতে রূপ নিয়েছে। শুনতে বেখাপ্পা লাগলেও এমনটাই যেন ঘটেছে ময়মনসিংহে। নদে জেগে ওঠা বালুচরে বসানো হয়েছে কিটকট চেয়ার। যার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘গরিবের কক্সবাজার’ শিরোনামে রীতিমতো ভাইরাল।

আর তাই দলে দলে মানুষ যাচ্ছেন ময়মনসিংহ জয়নুল আবেদিন পার্কের বিপরীতে ব্রহ্মপুত্র নদের চরে। ভিড় করছেন টিকটকাররা। বানানো হচ্ছে টিকটক, রিলস। তবে নাগরিক সমাজ বলছে, নদ খনন কাজের কারণে জেগে উঠা চর দখল করে ব্যাবসা করতেই অভিনব কায়দায় চলছে দখল প্রক্রিয়া।

সরেজমিনে দেখা যায়, কিটকট চেয়ারে কেউ বসে আছেন আবার কেউবা শুয়ে আছেন। কেউ আবার তুলে যাচ্ছেন ছবি। সেখানে দেখা মেলে টিকটকারদেরও। ফলোয়ারদের জন্য তারা বানাচ্ছেন পছন্দের গানের টিকটক, রিলস। এ ছাড়া নদের মাঝখানে কাপড় টানিয়ে বানানো হয়েছে ড্রেসিং রুম। ইতোমধ্যে নদের মাঝে বসেছে খাবারের দোকানও।

তবে এই বিষয়টি নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ময়মনসিংহের নাগরিক সমাজ। নদের জমি দখলের এটি একটি অভিনব কায়দা বলে মনে করছেন তারা।

ব্রহ্মপুত্র সুরক্ষা আন্দোলনের সমন্বয়ক আবুল কালাম আল আজাদ বলেন, কায়দাটি খুবই অভিনব। নদটা দখল করে টাকা আয় করার একটি প্রক্রিয়া এটি। নদ শেষ হয়ে যাক, কিন্তু দখল-ব্যবসা করতে হবে। নদের পাড়ে কিছু মানুষ আসবে, খোলা জায়গা যেহেতু আর নেই সেহেতু মানুষজন এখানে এসে হাওয়া খাবে এবং টাকা দেবে। ফলে নদটা ধীরে ধীরে দখল হবে এবং বিশেষ শ্রেণির মানুষের পকেট ভারী হবে।

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) ময়মনসিংহ মহানগরের সম্পাদক আলী ইউসুফ বলেন, সৌন্দর্যের নামে নদ দখলের পাঁয়তারা করা হচ্ছে বলে আমি মনে করি। প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। এসব চেয়ার উচ্ছেদ করার পাশাপাশি কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়াই যারা এই কাজটি করেছে তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হোক। যাতে আবার কেউ দখলের চিন্তা না করতে পারে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর